PU Applications

Premier University Mobile Apps
Premier University Information System android apps for Students and Faculties
Click here for download

Webmail Logo
Premier University Webmail Service. To get click here

Profile Login

User Login Form

 



News
"পৃথিবীর মানুষ তৃতীয় শিল্প বিপ্লবের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে" প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে উপাচার্য ড. অনুপম সেন
May 12, 2018

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেন, ‘পৃথিবীর মানুষ তৃতীয় শিল্প-বিপ্লবের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে’। তৃতীয় শিল্প-বিপ্লব শুরু হয়েছে এখন, ইনফরমেশন টেকনোলজি বা যোগাযোগ প্রযুক্তির বিশাল ও ব্যাপক প্রসারের মাধ্যমে। প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের উদ্যোগে দু’ দিনব্যাপী আয়োজিত এই বিভাগের এলুমনি জুবিলীর (১০ বছর পূর্তি) দ্বিতীয় দিনের আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে নগরীর দামপাড়াস্থ প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ভবনের কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে দ্বিতীয় দিনের এই অনুষ্ঠানে আরো বলেন, বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা মেধাবী। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে অবদান রাখার ক্ষেত্রে একসময় তারা সুযোগ কম পেলেও, বর্তমানে পর্যাপ্ত সুযোগ পাচ্ছে। তিনি এসময় প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র প্রয়াত এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর গভীর আন্তরিকতা ও অবদানের কথা স্মরণ করেন। আলোচনা অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল ফিজিক্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. কে. সিদ্দিক-ই-রব্বানী এবং বুয়েটের সিএসই বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. কায়কোবাদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মিহির কুমার রায়, আইইবি-র চট্টগ্রাম সেন্টারের ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার প্রবির কুমার দে, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. তৌফিক সাঈদ এবং গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইফতেখার মনির। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার ইঞ্জিনিয়ার মো. আবু তাহের। সভাপতিত্ব করেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান টুটন চন্দ্র মল্লিক। অতিথি অধ্যাপক ড. কে. সিদ্দিক-ই-রব্বানী তাঁর উদ্ভাবিত বিভিন্ন প্রযুক্তির কথা বক্তব্যে তুলে ধরেন। তিনি এদেশে এমন টেকনোলজি উদ্ভাবন করা প্রয়োজন মনে করেন, এদেশের সাধারণ মানুষ যা স্বল্প খরচে ব্যবহার করে উপকার পাবে। দেশের খ্যাতনামা এই বিজ্ঞানী এই অনুষ্ঠানে যোগদান করতে পারায় তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। অতিথি অধ্যাপক ড. মো. কায়কোবাদ বলেন, পৃথিবীতে তড়িৎ প্রকৌশল এখন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।বস্তুত গোটা পৃথিবীটাই এখন তড়িৎ প্রকৌশলের উপর নির্ভর করছে। আমার বিশ্বাস, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থীরা একথা মনে রেখে বাংলাদেশ তথা পৃথিবীর কল্যাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। আরো বক্তব্য রাখেন তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের প্রাক্তন অ্যাডজাঙ্কট ডিন, প্রয়াত প্রফেসর অনিল কান্তি ধরের পুত্র ড. প্রণব ধর। তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের প্রভাষক সাইফুদ্দিন মুন্না ও সানজিদা আকতার তুনাজের সঞ্চালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে বিভাগের এলামনাইদের পক্ষ থেকে স্তবক দাস ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে প্রিয়ম চৌধুরী প্রিন্স বক্তব্য রাখেন। আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে প্রজেক্ট ও পোস্টার প্রদর্শনী প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়। প্রধান অতিথি প্রফেসর ড. অনুপম সেন, অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দকেও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। আলোচনা অনুষ্ঠানের পূর্বে ‘রিসার্চ ফর লাইফ ফোকাসিং অন পিপল’স নিডস’ বিষয়ক সেমিনার পরিচালনা করেন অধ্যাপক ড. কে. সিদ্দিক-ই-রব্বানী। দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। উল্লেখ্য, ১০ মে সকাল ১০ টায় অ্যালুমিনিয়াম জুবিলীর প্রথম দিনে নগরীর প্রবর্তক মোড়স্থ বিশ্ববিদ্যালয় ভবনে উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন এই অ্যালুমিনিয়াম জুবিলীর উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন শেষে র‌্যালি বের করা হয়। পরে প্রবর্তক মোড়স্থ বিশ্ববিদ্যালয় ভবনের অডিটোরিয়ামে প্রজেক্ট ফেয়ার এন্ড পোস্টার প্রেজেন্টেশন, সেমিনার অন রোবটিক্স, সেমিনার অন পাওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং, কালচারাল প্রোগ্রাম প্রভৃতি পরিচালিত হয়।